শিরোনাম
আইডিইবি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড এন্টারপ্রেনার্স ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন এর কমিটি গঠন ডিজিটাল বাংলাদেশের পরবর্তী ধাপ ক্যাশলেস সোসাইটি : জয় এসএমই ফাউন্ডেশনের ১০০’ কোটি টাকা ঋণের ৩৩ শতাংশ পেয়েছেন নারী উদ্যোক্তারা নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের আঁতাতকরী বিএনপি নেতা নাসিরকে গনধোলাই দিলো কর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা নিয়ে স্বজনপ্রীতি সহ্য করা হবে না : ওবায়দুল কাদের করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৩২০০ কোটি টাকার নতুন প্রণোদনা প্যাকেজের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের হাসেম ফুড পরিদর্শনে এসে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, পুলিশের লাঠিচার্জ চলমান লকডাউন শিথিল, ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর বিধি-নিষেধের প্রজ্ঞাপন জারি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘে প্রস্তাব গৃহীত করোনা রোগীর চাপে চট্টগ্রাম মেডিকেলে সাধারণ রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন

চট্টগ্রামে ২৪ ঘন্টায় ৫ করোনা রোগীর মৃত্যু

ন্যাশনাল ডেস্ক, পিআরবি নিউজ
আপডেট বুধবার, ২১ এপ্রিল, ২০২১

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৫ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন ২৮৭ জনের নমুনায় ভাইরাস শনাক্ত হয়। সংক্রমণের হার ১৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিবেদনে দেখা যায়, গতকাল মঙ্গলবার নগরীর সাতটি ল্যাবে ১ হাজার ৪৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নতুন শনাক্ত ২৮৭ জনের মধ্যে শহরের বাসিন্দা ২৩৬ জন এবং দশ উপজেলার ৫১ জন। জেলায় মোট সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা এখন ৪৭ হাজার ৮৬১ জন। এর মধ্যে শহরের ৩৮ হাজার ৪২৪ জন ও গ্রামের ৯ হাজার ৪৩৭ জন। উপজেলায় আক্রান্তদের মধ্যে সর্বোচ্চ ফটিকছড়িতে ১৩ জন, হাটহাজারীতে ১২ জন, রাউজানে ৬ জন, সীতাকুন্ড, মিরসরাই ও আনোয়ারায় ৫ জন করে, বোয়ালখালীতে ২ জন এবং লোহাগাড়া, চন্দনাইশ ও বাঁশখালীতে ১ জন করে রয়েছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনায় মারা যান ৫ জন। এরা সবাই শহরের বাসিন্দা। জেলায় মোট মৃতের সংখ্যা এখন ৪৭৭ জন। এতে শহরের বাসিন্দা ৩৫৫ জন ও গ্রামের ১২২ জন। সুস্থতার ছাড়পত্র পেয়েছেন ৮৪ জন। মোট আরোগ্য লাভকারীর সংখ্যা এখন ৩৫ হাজার ৫৪০ জন। এর মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসা নেন ৪ হাজার ৮৬০ জন এবং হোম আইসোলেশেনে থেকে চিকিৎসায় সুস্থ হন ৩০ হাজার ৬৮০ জন। হোম আইসোলেশনে নতুন যুক্ত হন ৩০ জন ও ছাড়পত্র নেন ১৫ জন। বর্তমানে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ১ হাজার ৩৯৪ জন।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে গতকালের ৫ জনসহ চলতি মাসের ২০ দিনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৮৮ জনে। করোনাকালের সর্বোচ্চ ৯ রোগীর মৃত্যু হয় চলতি মাসের ১০ তারিখে। তবে এদিন এ মাসের সর্বনি¤œ ২২৮ জনের নমুনায় ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়। সংক্রমণ হার ১২ দশমিক ২১ শতাংশ। জেলার সর্বোচ্চ ৫৪১ জন আক্রান্ত হয় এ মাসে। এদিন ৭ রোগীর মৃত্যু হয়।
ল্যাবভিত্তিক রিপোর্টে দেখা যায়, গতকাল সবচেয়ে বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ফৌজদারহাটস্থ বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস ল্যাবে। এখানে ৪৬৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় গ্রামের ৪ জনসহ ৫৩ জন জীবাণুবাহক পাওয়া যায়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২৮৯ জনের মধ্যে শহরের ৪৭ জন ও গ্রামের ৩৪ জন করোনায় আক্রান্ত হিসেবে চিহ্নিত হন। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২০৬টি নমুনার মধ্যে গ্রামের ৬টিসহ ৩৯টিতে ভাইরাস পাওয়া যায়। নগরীর একমাত্র বিশেষায়িত কোভিড চিকিৎসা কেন্দ্র আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের আরটিআরএলে ৪৭টি নমুনা পরীক্ষায় গ্রামের ১টিসহ ২৫টি নমুনা পজিটিভ শনাক্ত হয়।
নগরীর বেসরকারি তিন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরির মধ্যে শেভরনে ২৬৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে গ্রামের ১ জনসহ ৩১ জন, ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ১৩৯ নমুনায় গ্রামের ২ জনসহ ৩৫ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালে ৬০ নমুনার মধ্যে শহরের ২৩ জনের শরীরে ভাইরাস থাকার প্রমাণ মিলে।
এদিন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়নি। এছাড়া, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজেও কোনো নমুনা পাঠানো হয়নি।
ল্যাবভিত্তিক রিপোর্ট পর্যবেক্ষণে বিআইটিআইডি’তে ১১ দশমিক ৩৭, চবি’তে ২৮ দশমিক ০৩, সিভাসু’তে ১৮ দশমিক ৯৩, আরটিআরএলে ৫৩ দশমিক ১৯, শেভরনে ১১ দশমিক ৫২, ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ২৫ দশমিক ১৮ শতাংশ এবং আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে ৩৮ দশমিক ৩৩ শতাংশ সংক্রমণ হার পাওয়া যায়।


এই বিভাগের আরো খবর
greengrocers

Categories

Archives