শিরোনাম
আইডিইবি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড এন্টারপ্রেনার্স ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন এর কমিটি গঠন ডিজিটাল বাংলাদেশের পরবর্তী ধাপ ক্যাশলেস সোসাইটি : জয় এসএমই ফাউন্ডেশনের ১০০’ কোটি টাকা ঋণের ৩৩ শতাংশ পেয়েছেন নারী উদ্যোক্তারা নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের আঁতাতকরী বিএনপি নেতা নাসিরকে গনধোলাই দিলো কর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা নিয়ে স্বজনপ্রীতি সহ্য করা হবে না : ওবায়দুল কাদের করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৩২০০ কোটি টাকার নতুন প্রণোদনা প্যাকেজের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের হাসেম ফুড পরিদর্শনে এসে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, পুলিশের লাঠিচার্জ চলমান লকডাউন শিথিল, ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর বিধি-নিষেধের প্রজ্ঞাপন জারি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘে প্রস্তাব গৃহীত করোনা রোগীর চাপে চট্টগ্রাম মেডিকেলে সাধারণ রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৫ অপরাহ্ন

নোয়াখালীতে গৃহবধূ হত্যায় যুবকের আমৃত্যু কারাদণ্ড

মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন (লিটন), নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি
আপডেট মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ, ২০২১
নোয়াখালী

নোয়াখালীর সদর উপজেলার কালাদরাপ ইউনিয়নে গৃহবধূ ফারজানা আক্তার টুনি হত্যার ঘটনায় আবদুর রহিম জাবেদ প্রকাশ আরিফ (২৭ ) নামে এক যুবককে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সাথে তাকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

রবিবার (২১ মার্চ ) বিকালে নোয়াখালী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক সৈয়দ ফখরুল আবেদীন এ আদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আবদুর রহিম জাবেদ সদর উপজেলার কালাদরাপ ইউনিয়নের শুল্লকিয়া এলাকার চারুবানু গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, চারুবানু গ্রামের আবদুল বাসেতের স্ত্রী ফারজানা আক্তার টুনির বাড়ির সড়ক দিয়ে চলাচল নিয়ে আসামি আবদুর রহিম জাবেদের সাথে বিরোধের সৃষ্টি হয়। ২০১৫ সালের ১২ জুলাই বিকালে টুনির গাছের একটি নারিকেল কুড়ানোকে কেন্দ্র জাবেদের সাথে টুনির কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জের ধরে জাবেদ ধারালো দা দিয়ে টুনিকে মাথায় একাধিক আঘাত করলে রক্তাক্ত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে টুনি। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা নুরুল আমিন বাদী হয়ে ২০১৫ সালের ১৩ জুলাই আবদুর রহিম জাবেদকে আসামি করে সুধারাম থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। দীর্ঘ তদন্ত শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুধারাম থানার এসআই ইকবাল হোসেন ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আদালত ১৭ জনের সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযুক্ত আসামি আবদুর রহিম জাবেদকে আমৃত্যু কারাদণ্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দেয়। রাষ্ট্র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এডভোকেট গোলাম আকবর এবং আসামির পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এডভোকেট আবদুর রহিম রাসেল।


এই বিভাগের আরো খবর
greengrocers

Categories

Archives