শিরোনাম
আইডিইবি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড এন্টারপ্রেনার্স ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন এর কমিটি গঠন ডিজিটাল বাংলাদেশের পরবর্তী ধাপ ক্যাশলেস সোসাইটি : জয় এসএমই ফাউন্ডেশনের ১০০’ কোটি টাকা ঋণের ৩৩ শতাংশ পেয়েছেন নারী উদ্যোক্তারা নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের আঁতাতকরী বিএনপি নেতা নাসিরকে গনধোলাই দিলো কর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা নিয়ে স্বজনপ্রীতি সহ্য করা হবে না : ওবায়দুল কাদের করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৩২০০ কোটি টাকার নতুন প্রণোদনা প্যাকেজের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের হাসেম ফুড পরিদর্শনে এসে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, পুলিশের লাঠিচার্জ চলমান লকডাউন শিথিল, ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর বিধি-নিষেধের প্রজ্ঞাপন জারি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘে প্রস্তাব গৃহীত করোনা রোগীর চাপে চট্টগ্রাম মেডিকেলে সাধারণ রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন

পিরোজপুরে আমন চাল উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম

জেলা প্রতিনিধি ,পিআরবি নিউজ
আপডেট মঙ্গলবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

পিরোজপুর জেলায় এবার আমন চালের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করেছে। চলতি বছরে আমন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ১ লক্ষ ৮ হাজার ২ শত ৯২ মেট্রিক টন নির্ধারণ করা হলেও উৎপাদন হয়েছে ১ লক্ষ ২৩ হাজার ৬ শত ২৯ মেট্রিক টন যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৫ হাজার মেট্রিক টন বেশি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে পিরোজপুর সদর উপজেলায় ১৪ হাজার ৩৬০ মেট্রিক টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও উৎপাদন শেষে দেখা গেছে এ পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৮১৫ মেট্রিক টন। অনুরূপভাবে ইন্দুরকানীতে ৮ হাজার ৭৪২ এর পরিবর্তে ১০ হাজার ৩৭৯ মেট্রিক টন, কাউখালীতে ৬ হাজার ৮৬৬ এর পরিবর্তে ৭ হাজার ৬২০ মেট্রিক টন, নেছারাবাদে ১২ হাজার ৪১৭ এর পরিবর্তে ১৩ হাজার ৬৫৬ মেট্রিক টন, নাজিরপুরে ১২ হাজার ৮০১ এর পরিবর্তে ১৪ হাজার ৬১৮ মেট্রিকটন, ভান্ডারিয়ায় ১৫ হাজার ৬৪৮ এর পরিবর্তে ১৭ হাজার ৬৩০ মেট্রিক টন এবং মঠবাড়িয়ায় ৩৭ হাজার ৪৫৮ এর পরিবর্তে ৪০ হাজার ৯১১ মেট্রিক টন চাল উৎপাদন হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা অরুন রায় জানিয়েছেন, ২০২০-২১ অর্থ বছরে হাইব্রিড, উফশী, স্থানীয় রোপা, স্থানীয় বোনা মিলিয়ে ৬৪ হাজার ১শত ৯০ হেক্টরে আমনের চাষ করা হয় এবং চাল উৎপাদনের পরিমান দাঁড়ায় ১ লক্ষ ২৩ হাজার ৬শত ২৯ মেট্রিক টন। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা চিন্ময় রায় পিআরবিকে জানান, কৃষি উপকরণ কৃষকের দোরগোড়ায় পৌছে যাওয়ায় এবং সহজলভ্য হওয়ায়, আবহাওয়া অনুক’লে থাকায় এবং ঘূর্ণিঝড় বা জলোচ্ছাসসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হওয়ায় কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের উপদেশ অনুযায়ী কৃষকরা ব্যবস্থা নেওয়ায় উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করা সম্ভব হয়েছে। কৃষি বিভাগের উপ-সহকারী কর্মকর্তারা মাঠে মাঠে ঘুরে পাতামোড়ানো এবং পামরী পোকার দমনে আলোক ফাঁদ এবং পার্চিং পদ্ধতি ব্যবহারের পরামর্শ দেয়। সে অনুযায়ী চাষীরা ব্যবস্থা গ্রহণ করায় সহজেই পোকা দমন ও বিস্তার রোধ সম্ভব হয়।


এই বিভাগের আরো খবর
greengrocers

Categories

Archives