শিরোনাম
আইডিইবি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড এন্টারপ্রেনার্স ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন এর কমিটি গঠন ডিজিটাল বাংলাদেশের পরবর্তী ধাপ ক্যাশলেস সোসাইটি : জয় এসএমই ফাউন্ডেশনের ১০০’ কোটি টাকা ঋণের ৩৩ শতাংশ পেয়েছেন নারী উদ্যোক্তারা নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের আঁতাতকরী বিএনপি নেতা নাসিরকে গনধোলাই দিলো কর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা নিয়ে স্বজনপ্রীতি সহ্য করা হবে না : ওবায়দুল কাদের করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৩২০০ কোটি টাকার নতুন প্রণোদনা প্যাকেজের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের হাসেম ফুড পরিদর্শনে এসে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, পুলিশের লাঠিচার্জ চলমান লকডাউন শিথিল, ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর বিধি-নিষেধের প্রজ্ঞাপন জারি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘে প্রস্তাব গৃহীত করোনা রোগীর চাপে চট্টগ্রাম মেডিকেলে সাধারণ রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৯:২৩ পূর্বাহ্ন

নাসিক মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে মন্ডলপাড়া জামে মসজিদ কমিটির সংবাদ সন্মেলন

মাহমুদ হাসান কচি, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
আপডেট শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
মেয়র আইভি

সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিরুদ্ধে স্থানীয় মন্ডলপাড়া জামে মসজিদের ওয়াকফকৃত ৮২.৯০ শতাংশ জায়গার অংশ দখল চেষ্টা, স্থাপনা ভাঙচুর ও মডেল মসজিদ নির্মাণে হস্তক্ষেপের অভিযোগ তোলেন মসজিদ কমিটি।শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের রাইফেলস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মসজিদ কমিটির সদস্যরা এই অভিযোগ আনেন।
এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কমিটির সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ। তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রায় ৫৩৯ বছর পূর্বে বাবরীয় আমলে মোঘলরা এখানে একটি মসজিদ নির্মাণ করেন। এমন মসজিদ পুরো জেলায় মাত্র চারটি রয়েছে। ১৯৩৫ সালে মসজিদ ও তার আশপাশের মোট ৮২.৯০ শতাংশ জায়গা ওয়াকফ এস্টেট হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়।
এর মাঝে এই জায়গা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ নিজেদের বলে দাবি করলে আদালতের মামলায় রায় পায় মসজিদ কর্তৃপক্ষ। রেলওয়ে আপিল করলেও সেখানেও আমরা জয়ী হই। কিন্তু ২০১৭ সাল থেকে মেয়র আইভী ওয়াকফ এস্টেটের জায়গাটি কখনও সিটি করপোরেশনের, কখনও নিজের পৈত্রিক সম্পত্তি বলে দাবি করেন। ওই বছরের আগস্ট মাসে মসজিদ সম্পত্তির পাশের জায়গা উচ্ছেদকালে মসজিদের ১১টি ঘর ভেঙে দেয়া হয়। পরে এর ক্ষতিপূরণ চাওয়া হলেও তা দেয়নি সিটি করপোরেশন।
২০১৯ সালে জেলা মডেল মসজিদ নির্মাণের জন্য ইসলামী ফাউন্ডেশন থেকে এখানে মসজিদ নির্মাণের প্রস্তাব দেয়া হলে আমরা তাতে অনাপত্তি পত্র প্রদান করি এবং দ্রুত নির্মাণ কাজ শুরু করতে বলি। কিন্তু করোনার কারনণ সেটি বন্ধ থাকে। চলতি বছরের ১২ জানুয়ারি মেয়র আইভী অযাচিতভাবে মডেল মসজিদের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপনে তার নাম বসান। আমাদের অনাপত্তি দেয়া মডেল মসজিদের জন্য ৪৩ শতাংশ বাদে অবশিষ্ট ৪০ শতাংশ জমি গ্রাস করার পাঁয়তারা শুরু করেন। এতে আমরা আদালতে মামলা দায়ের করি।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মসজিদ কমিটির সদস্য রফিক, শহীদ, আব্দুর রহমান, বরকতউল্লাহ, অ্যাডভোকেট মোহসিন মিয়া প্রমুখ।


এই বিভাগের আরো খবর
greengrocers

Categories

Archives