শিরোনাম
আইডিইবি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড এন্টারপ্রেনার্স ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন এর কমিটি গঠন ডিজিটাল বাংলাদেশের পরবর্তী ধাপ ক্যাশলেস সোসাইটি : জয় এসএমই ফাউন্ডেশনের ১০০’ কোটি টাকা ঋণের ৩৩ শতাংশ পেয়েছেন নারী উদ্যোক্তারা নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের আঁতাতকরী বিএনপি নেতা নাসিরকে গনধোলাই দিলো কর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা নিয়ে স্বজনপ্রীতি সহ্য করা হবে না : ওবায়দুল কাদের করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৩২০০ কোটি টাকার নতুন প্রণোদনা প্যাকেজের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের হাসেম ফুড পরিদর্শনে এসে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, পুলিশের লাঠিচার্জ চলমান লকডাউন শিথিল, ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর বিধি-নিষেধের প্রজ্ঞাপন জারি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘে প্রস্তাব গৃহীত করোনা রোগীর চাপে চট্টগ্রাম মেডিকেলে সাধারণ রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

যুদ্ধাপরাধ মামলায় ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট, পিআরবি নিউজ
আপডেট মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধ তথা যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি এম এ হান্নানসহ আট আসামির বিরুদ্ধে আনা মামলায় ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দিয়েছেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের বিচারিক প্যানেলে মামলার বিচার চলছে। ট্রাইব্যুনালে এসে আজ মঙ্গলবার সকালে সাক্ষ্য দেন প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।
ট্রাইব্যুনালে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের সময় ময়মনসিংহে সংঘটিত অত্যাচার-নির্যাতনের ঘটনার সাক্ষ্য দেন।
এ সময় প্রসিকিউশন পক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর সুলতান মাহমুদ শিমন। আর আসামি পক্ষে ছিলেন আবদুস সোবহান তরফদার।
ময়মনসিংহের ত্রিশালের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রহমানের স্ত্রী রহিমা খাতুন ২০১৫ সালের ১৯ মে মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতা বিরোধী অপরাধের অভিযোগের একটি মামলা দায়ের করেন। সে মামলায় মুক্তিযুদ্ধকালীন ময়মনসিংহে শান্তি কমিটির সাধারণ সম্পাদক এম এ হান্নানসহ আটজনকে আসামি করা হয়।
আসামিদের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধকালীন হত্যা, আটক, নির্যাতন, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, অপহরণ ও লাশ গুমের অভিযোগ আনা হয়। এই মামলার আট আসামির মধ্যে এম এ হান্নান, ডা. রফিক সাজ্জাদ, ডা. খন্দকার গোলাম সাব্বির আহমদ, মিজানুর রহমান মিন্টু ও হরমুজ আলী গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। আরেক আসামি আবদুস সাত্তার আত্মসমর্পণ করেন। এছাড়া এই মামলায় পলাতক রয়েছেন ফখরুজ্জামান ও খন্দকার গোলাম রব্বানী।


এই বিভাগের আরো খবর
greengrocers

Categories

Archives