Logo
শীর্ষ খবর
স্বাস্থ্যখাতে সাত দফা দাবি নিয়ে ‘নিরাপদ চিকিৎসা চাই’ এর মানববন্ধন নির্বাচিত স্ট্যাটাসঃ”অক্সিজেন ব্যাঙ্ক: ইমোশনাল আপডেট” তুমি আমার হৃদয়ের অর্ধেক নিয়ে চলে গেলে: কৃতি শ্যানন “সুশান্তের মৃত্যু পরিকল্পিত খুন”, বলিউডের প্রভাবশালীদের দিকে তীর কঙ্গনার সুশান্তের আত্মহত্যার পরে সালমানকে বয়কট করার ডাক! কেমন কেটেছিল সুশান্ত সিংহ রাজপুতের শেষ দিনগুলি নির্বাচিত স্ট্যাটাসঃ “শুধু মাত্র শিক্ষার্থী বন্ধুদের জন্য” ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে, বেড়েছে সুস্থতা মায়ের কবরে শায়িত হলেন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ নাসিম বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত আত্মহত্যা করেছেন ; তদন্ত চলছে করোনা জনসচেতনতায় দিনব্যাপী শাহবাগ থানা ছাত্রলীগের কর্মসূচী সাবেক মন্ত্রী বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ নাসিম আর নেই আজকের গল্পটা একজন প্রবাসীর করোনায় কেনাকাটাঃ ভরসা অনলাইন শপে,শপিংমলে নয় যুবলীগ চেয়ারম্যান পরশ ও সা.সম্পাদক নিখিলের পক্ষে আহাম্মদ উল্লাহ মধুর ত্রান বিতরন লিওয়ানোদোস্কির গোলে জার্মান কাপের ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখ

করোনা সংক্রমণের তিনমাস পার না হতেই টালমাটাল চাকরীর বাজার!

ডেস্ক রিপোর্ট, পিআরবি নিউজ
আপডেট মঙ্গলবার, ৯ জুন, ২০২০

বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী সনাক্ত হয় ৮ই মার্চ। পরবর্তীতে পরিস্থিতির ভয়াবহতা আন্দাজ  করতে পেরে ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছিল সরকার। সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছিল।কিন্তু এই সাধারণ ছুটির মেয়াদ দু’মাসেরও বেশি সময় ছাড়িয়ে যাবে সেটি অনেকের ধারনায়ও ছিল না।  সরকারি ছুটির মেয়াদ দফায়-দফায় বাড়িয়ে ৩০ মে পর্যন্ত নেয়া হয়েছে। কিন্তু এখনো সব অন্ধকারে।জানুয়ারি মাসে চীন যখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে প্রাণপণ লড়াই চালিয়েছে, তখন বাংলাদেশ ছিল অনেকটাই নির্ভার।

বাংলাদেশের ভেতরে অনেকেই এই ভাইরাসের কথা শুনে হেসে উড়িয়ে দিয়েছিল, করেছিল নানারকম হাসি-তামাশা। বাংলাদেশের অনেক হেভিওয়েট চিকিৎসক বেশ জোরেশোরে বলেছিলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এখানে হবেনা কারণ বাংলাদেশের তাপমাত্রা বেশি। অথচ মাত্র তিনমাসের মধ্যে সব বদলে গেল। করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক আর উদ্বেগে পুরোজাতি এখন দিশেহারা।

 

ঢাকাকে এখন ভিক্ষুকের শহর বললে ভুল হবে না। ঢাকা শহরে এখন যে কোন জায়গায় গেলেই ভিক্ষুকের দীর্ঘ সারি চোখে পড়ার মতো। এতো ভিক্ষুক এর আগে কেউ কখনো দেখেছে কি না সেটি নিয়ে সন্দেহ আছে। শহরের যে কোন সুপার শপ, মুদি দোকান কিংবা কাঁচাবাজারে গেলেও চারপাশ থেকে ভিক্ষুক ঘিরে ধরবে। গুলশান, বনানী, ধানমন্ডি এবং উত্তরাসহ শহরের অভিজাত এলাকার প্রায় প্রতিটি বাড়ির সামনে ভিক্ষুকদের বসে থাকতে দেখা যায়। বাংলাদেশে তথাকথিত লকডাউন দেখিয়ে দিয়েছে এদেশের বেশিরভাগ মানুষ প্রতিদিনের রোজগারের উপর নির্ভরশীল। একদিন আয় না থাকলে রাস্তায় নেমে ভিক্ষা করতে বাধ্য হয় অনেকে।

বাংলাদেশে যে কোন সংকট তৈরি হলেই সবার আগে গার্মেন্টস শ্রমিকদের কথা উঠে।তাদের জীবন-জীবিকা নিয়ে যতো আলোচনা হয়, অন্য শ্রমিকদের নিয়ে ততটা আলোচনা হয়না।লকডাউনের’ কারণে যে পরিবহন শ্রমিক, রিকশাচালক, অটোমোবাইল মিস্ত্রি রাস্তায় নেমে হাত পাততে বাধ্য হয়েছে তাদের কথা কেউ ভেবেছে কি না সেটি এক প্রশ্ন। শুধু তাই নয়, শহরে যারা বিভিন্ন ধরণের ছোটখাটো দোকান চালিয়ে নিজের জীবিকা নির্বাহ করে তাদের অবস্থাও শোচনীয়।

প্রতিমাসের বেতনের উপর নির্ভর করে যারা সংসার চালাতেন, তাদের জীবন এখন থমকে যাবার উপক্রম।বহু প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মীদের হয়তো বেতন বন্ধ করে দিয়েছে, নয়তো পুরো বেতন দিচ্ছে না ।অনেক প্রতিষ্ঠানে ছাঁটাই শুরু করেছে নয়তো করবে এমন চিন্তা করছে। ঢাকার নামকরা এক রিটেইল চেইন শপে কর্মরত একজন চাকরিজীবি জানালেন তাদের কোম্পানিতেও কর্মী ছাঁটাই এর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ‘লকডাউন’ এখন তাদের জন্য দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। ভবিষ্যতের কথা ভেবে মধ্যবিত্ত এমন চাকরিজীবি অনেকেই এখন উদ্বিগ্ন। একদিকে করোনাভাইরাসে সংক্রমণের মাত্রা বেড়ে চলেছে, অন্যদিকে চাকরি নিয়ে অনিশ্চয়তা – এ দুটো মিলিয়ে অনেকেই এখন হতাশাগ্রস্ত।

ডেস্ক রিপোর্ট/পিআরবি/৩২/প্রতিবেদন


সম্পর্কিত
Theme Created By ThemesDealer.Com